Home / শিক্ষা / মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত পেলেন “রকফেলার ফাউন্ডেশ স্কলারশিপ”

মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত পেলেন “রকফেলার ফাউন্ডেশ স্কলারশিপ”

বিশ্বের নামিদামি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা নেয়ার স্বপ্ন কার না থাকে ¿? ঠিক তেমনি স্বপ্নছিলো ময়মনসিংহের মুক্তাগাছার মেধাবী শিক্ষার্থী মোস্তাক আহাম্মেদ শান্তর ৷৷ এশিয়ার সেরা স্কলারশিপ “রকফেলার ফাউন্ডেশ স্কলারশিপ” নিয়ে চায়না থ্রি গরজেস বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিবিএস পড়তে যাচ্ছে মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত ৷৷ ২০১৬ সালে শহীদ স্মৃতি সরকারি কলেজ, মুক্তাগাছা থেকে এইচএসসি পাস করার পর অনেক আশা ছিলো সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তি হবে ৷৷ কিন্তু তার চিকিৎসক হওয়ার যে স্বপ্ন ছোটবেলা থেকেই ছিল, সেটা ধূলিসাত হয়ে গিয়েছিল মাত্র এক ঘণ্টার ভর্তি পরীক্ষায় ৷৷ “মোস্তাক” সরকারি মেডিকেলে চান্স পায় নি ৷৷ তারপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়ে মোস্তাক ভর্তি হয় জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ ডিপাটমেন্টে ৷৷ কিন্তু সেখানে পড়তে তার মন সায় দেয় নি ৷৷ কারণ তার স্বপ্নই তো ছিলো ডাক্তার হবে ৷৷ এই প্রফেশনে গিয়ে মানুষকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে সাহায্য করতে চান ৷৷ তাই “মোস্তাক” সিদ্ধান্ত নেয় দেশের বাইরে মেডিকেলে পড়ালেখা করবে ৷৷ ইন্টারনেটে অনেক খোঁজাখুঁজির পর মোস্তাক জানলেন, চীনের সরকারি মেডিকেল ভার্সিটিতে স্কলারশিপে এমবিবিএস পড়া যায় ৷৷ খুব বেশিদিন লাগল না ৪ মাসের মাথাতেই চীনে একটা স্কলারশীপ পেয়ে গেল মোস্তাক ৷৷ স্কলারশিপের ব্যাপারে মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত বলেন, আমি “রকফেলার ফাউন্ডেশ স্কলারশীপ” সম্পর্কে জানতে পারি ইন্টারনেটে ৷৷ তবে প্রথমে খুব একটা আগ্রহি ছিলাম না ৷৷ ভেবেছিলাম স্কলারশিপ পাবো না ৷৷ তবু আব্বুর পিরা-পিরিতে ফরমটা পূরণ করা হলো ৷৷ পরীক্ষার তারিখ হলো ৷৷ তরপর ঢাকায় চায়না এম্বাসীতে এসে অনলাইনে চায়না থ্রি গরজেস বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিলাম ৷৷ যখন রেজাল্ট দিল তখন বুঝলাম পরীক্ষায় সফলতার সাথে উত্তির্ন হয়েছি ৷৷ তারপর স্কাইপে ভাইবাতেও টিকলাম ৷৷ অতঃপর Confirmation Mail এ জানালো Congratulation you are upgraded into the Main List. Confirmation as a Scholarship Holder. মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত আরো বলেন, ভাবতে খুবই ভাল লাগছে যে আমি স্কলারশিপে মেডিকেলে পড়তে যাচ্ছি ৷৷ আর বেশী দিন বা‌কি নেই, সেই সাদা এপ্রো‌নের স্বপ্নটা হাতছা‌নি দি‌য়ে ডাক‌ছে ৷৷ স্কলারশিপের বিষয়ে “মোস্তাক আহাম্মেদ শান্ত” কে প্রশ্ন করা হলে মোস্তাক বলেন, চীনে প্রচুর স্কলারশিপ পাওয়া যায় পড়াশুনার জন্য ৷৷ এমবিবিএস এর জন্য স্কলারশিপ পাওয়া একটু কঠিন ৷৷ কারণ, অন্যান্য বিষয়ে সকল বাংলাদেশিদের স্কলারশিপ দেওয়া হলেও এমবিবিএসে সবাইকে দেওয়া হয় না ৷৷ চীনে জন্য সরকারের স্কলারশিপ ডাটাবেজে যোগাযোগ করে শিক্ষার্থীদেরকেই সুযোগ নিতে হবে ৷৷ সরকারের স্কলারশিপ ছাড়াও রোটারি ইন্টারন্যশনাল, বিশ্বব্যাংক, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক, জাতিসংঘ, রকফেলার ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন সংস্থার বৃত্তির জন্য এসোসিয়েশন অব কমনওয়েলথ ইউনিভার্সিটিজ-এর ওয়েবসাইটে পরামর্শ পাওয়া যায় ৷৷ এছাড়াও এমবিবিএস পড়ার পর চীনে এমডিও (Doctor of medicine) করা যায় ৷৷ এমডি করার জন্য অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে স্কলারশিপ পাওয়া যায় ৷৷ অর্থাৎ বিনা খরচে পড়া যায় ৷৷ মোস্তাক আহাম্মেদ আরোও বলেন, আসুন, উচ্চশিক্ষা নিয়ে সবাই মিলে একটি শিক্ষিত ও সুন্দর সোনার বাংলা গড়ে তুলি ৷৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *