আবারো যুক্তরাষ্ট্রের স্কুলে বন্দুক হামলা

মেরিল্যান্ড: যুক্তরাষ্ট্রে মেরিল্যান্ডের একটি হাইস্কুলে বন্দুকধারী এক শিক্ষার্থীর গুলিতে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। বন্দুকধারী শিক্ষার্থী অস্টিন রোলিনস স্কুলের নিরাপত্তারক্ষীর গুলিতে নিহত হয়েছে। নিরাপত্তারক্ষীও আহত হয়েছেন। খবর সিএনএনের।

সিএনএনের খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে ওয়াশিংটন থেকে ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে মেরিল্যান্ডের সেন্ট মেরি কাউন্টির গ্রেট মিলস হাইস্কুলে এ হামলা হয়। গুলিবিদ্ধ দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সকালে স্কুল শুরুর কিছুক্ষণ পরই ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থী অস্টিন রোলিনস ১৪ বছর বয়সী এক ছাত্র ও ১৬ বছর বয়সের এক ছাত্রীকে গুলি করে। পরে এক নিরাপত্তারক্ষী রোলিনসকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে সে আহত হয়। তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যায়।

স্থানীয় পুলিশের প্রধান ক্যামেরন বলেন, গুলির কারণ বা শিক্ষার্থীদের মধ্যে কি সম্পর্ক তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, বন্দুকধারী তার নিজের না কি নিরাপত্তারক্ষীর গুলিতে নিহত হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। গুলিবিদ্ধ ছাত্রের অবস্থা শঙ্কামুক্ত হলেও ছাত্রীর অবস্থা গুরুতর বলে সেন্ট মেরি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

এ ঘটনার পরপরই সরকারি ওই স্কুলের প্রায় ১ হাজার ৬০০ শিক্ষার্থীকে পুলিশ প্রহরায় অভিভাবকদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

মাসখানেক আগে ফ্লোরিডার স্কুলে বন্দুক হামলায় ১৭ জন নিহত হয়। সেই হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও স্কুলে বন্দুকধারী হামলা চালালো। এতে শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মধ্যে নতুন করে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এর আগে ২০১২ তে কানেটিকাটের একটি স্কুলে গুলিতে ২৬জন মারা যাওয়ার পর এটি কোনো স্কুল প্রাঙ্গনে সবচেয়ে ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের ঘটনা।

‘এভরিটাউন ফর গান সেফটি’ নামের একটি সংস্থার জরিপ অনুযায়ী, এই বছরে এনিয়ে ১৮বার যুক্তরাষ্ট্রে কোনো স্কুলের ভেতরে বা স্কুল প্রাঙ্গনে গোলাগুলির ঘটনা ঘটলো।

২০১৩ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে ২৯১টি। গড়ে প্রায় প্রতি সপ্তাহে একটি করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*