ব্লুটুথ ৫ সম্পর্কে যা জানা দরকার

অবশেষে গত সপ্তাহে অফিসিয়ালি এক যুগেরও বেশি পুরনো এই প্রযুক্তিটির আপডেট আসে। যা গ্রাহকদের দ্রুততর পেয়ারিং এবং দীর্ঘতর দূরত্বের তারবিহীন সংযোগ প্রদান করছে। ব্লুটুথ ৫,যা কানেকশন টেকনোলজিতে অফিসিয়াল স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে ব্লুটুথ এসআইজি দ্বারা স্বীকৃত হয়েছে। আশা করা হচ্ছে ওয়ারলেস সংযুক্ত গ্যাজেটের উৎপাদনের হার আরো বাড়ানো হবে। অ্যাবিআই – এর রিসার্চ অনুযায়ী যে হারে কানেক্টেড ডিভাইসের ব্যাবহার বাড়ছে তাতে ২০২১ সালের মধ্যে এই প্রযুক্তিযুক্ত গ্যাজেটের সংখ্যা বেড়ে ৪৮ বিলিয়নে পৌঁছাবে।অর্থাৎ তিন ভাগের এক ভাগ গ্যাজেটের মধ্যে ব্লুটুথ প্রযুক্তি থাকবে। এখন ব্লুটুথ ৫ কিভাবে সবার থেকে আলাদা? ব্লুটুথ ৫ তাদের পূর্বসরিদের চেয়ে দ্বিগুণ গতিসম্পন্ন এবং চতুর্গুণ দূরত্ব পর্যন্ত অন্য ডিভাইসের সাথে সংযুক্ত হতে পারে। যা কিনা একে বাড়ির চতুর্দিকে এমনকি বাড়ির বাইরেও ব্যাবহারের জন্য নির্ভরযোগ্য করে তুলেছে।ব্লুটুথ ৫ এর ব্যান্ডউইথ ১ এমবিপিএস থেকে ২ এমবিপিএস- এর উপর পর্যন্ত।
অতএব এর মাধ্যমে দ্বিগুণ পরিমাণ তথ্য আরো দ্রুততার সাথে আদান-প্রদান করা সম্ভব।এর মানে হল ডিভাইসটি আরো অনেক কম সময়ে কোন তথ্য ডাউনলোড করতে পারবে এবং তা অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারবে ।দীর্ঘতর পরিসীমা যা কিনা ব্লুটুথ ৪.২ এর চেয়ে ৪ গুন বেশী। একই সাথে ব্লুটুথ ৫ এ কম শক্তির প্রয়োজন যা এই প্রযুক্তির ব্যাবহারের অভিজ্ঞতাকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here