তাইওয়ানের কাছে ১৮ কোটি মার্কিন ডলারের হেভিওয়েট টর্পেডো বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে পারস্পারিক স্বার্থের ভিত্তিতে এই বিক্রির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্তের কারণে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের সম্পর্কে আরও টানাপোড়েন তৈরির আশঙ্কার কথা জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা। উল্লেখ্য, স্বশাসিত দ্বীপরাষ্ট্র তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ বলে মনে করে চীন।
বুধবার টানা দ্বিতীয় মেয়াদে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন চীনবিরোধী হিসেবে পরিচিত ডেমোক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির (ডিপিপি) প্রার্থী সাই ইং ওয়েন। এরপরই চীনের তাইওয়ান বিষয়ক কার্যালয়ের মুখপাত্র সতর্ক করে দিয়েছেন স্বশাসিত অঞ্চলটির বিচ্ছিন্নতা কখনো সহ্য করবে না বেইজিং। আর তারপরেই তাইওয়ানকে অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দেয় যুক্তরাষ্ট্র।
মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত এই বিক্রয় অনুমোদনের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয়, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা স্বার্থ সুরক্ষিত হবে। এছাড়া বলা হয়েছে এই অস্ত্র পাওয়ার মধ্য দিয়ে গ্রহণকারীর নিরাপত্তার উন্নয়ন হবে এবং রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, সামরিক ভারসাম্য এবং আঞ্চলিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহায়তা করবে। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে এমকে-৪৮ এমওডি অ্যাডভান্সড টেকনোলোজির হেভিওয়েট টর্পেডোগুলো মার্কিন নৌবাহিনীর মজুদ থেকে সরবরাহ করা হবে। এই টর্পেডো সাবমেরিন থেকেও নিক্ষেপ করা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here